উপাচার্য মহোদয়ের বাণী

  বই মনের চোখ খুলে দেয়। বই পড়ি জ্ঞানী হই। সনদধারী উচ্চশিক্ষিত লোকের চেয়ে জ্ঞানী মানুষ অনেক বেশী সম্মানিত।

  শিক্ষকতা শুধু অর্থোপার্জনের জন্য নয়। শিক্ষার্থীদের জ্ঞানী হিসাবে গড়ে তোলাই এর প্রধান উদ্দেশ্য।

  কার কত বেশী সার্টিফিকেট আছে বা নেই, এর চেয়েও বড় প্রশ্ন কে কতটা জ্ঞানী।

  এখন তুমি কলি, ফুল হয়ে ফুটবে একদিন। ফোটার আগে যেন ঝরে না পর, এজন্য নিজেকে তৈরী কর শক্তভাবে। ফেসবুক, গল্প-আড্ডায় সময় নষ্ট করে নয়। ভবিষ্যতে আয়-রোজগারের চিন্তায় হতাশ হয়ে নয়, বরং নিজেকে তৈরী কর পড়াশুনার মাধ্যমে। যদি হতে পার জ্ঞানী তাহলে তুমিই হবে বাগিচার সেরা ফুল।

(আহসান সাইয়েদ)
প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আহসান উল্লাহ
উপাচার্য

সংক্ষিপ্ত ইতিহাস

history-iau

দীর্ঘ প্রতীক্ষা শেষে ২০১৩ সালে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ কর্তৃক ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় আইন ২০১৩ বিল আকারে জাতীয় সংসদে উত্থাপিত হয়। অত:পর ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৩ খ্রি. তারিখ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতীয় সংসদ এ বিল পাস করে। এভাবে প্রতিষ্ঠিত হয় ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয়। এ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বাংলাদেশের মাদরাসা শিক্ষক-শিক্ষার্থী, আলিম, পীর-মাশায়িখ ও দেশের জনগণের দীর্ঘ দিনের দাবী পূরণ হল।



যে মেয়েটি ভুখা আছে
যে ছেলেটি দরিদ্র
দু:খ চিন্তায় যে জননীর
রাত কাটে বিনিদ্র।

যে ফুটাবে তাদের মুখে
একটু খানি হাসি
সেই তো পাবে মহান স্রষ্টার
দয়া রাশি রাশি।

       - আহসান সাইয়েদ